বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়

অনাকাঙ্খিত কোন কারণে বিকাশ একাউন্ট সাময়িকভাবে বন্ধ হতেই পারে। তা নিয়ে চিন্তার কারণ নেই। জানুন বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হওয়ার কারণ ও করণীয়।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়

আমাদের প্রায় সকলেই বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করে থাকি। বিকাশ একাউন্ট হঠাৎ কোন কারণে বন্ধ হয়ে গেলে আমাদের অনেক অসুবিধায় পড়ে যাব। তাই জেনে নিন, বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয় কি, কিভাবে ঘরে বসেই বন্ধ হওয়া একাউন্ট পুনরায় চালু করবেন।

মোবাইলে সহজ ও দ্রুত লেনদেনের জন্য (bKash) বিকাশই সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ও গ্রহণযোগ্য মাধ্যম। দৈনন্দিন অনেক ছোট-বড় লেনদেনেই আমরা বিকাশ ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু কোন কারণে বা ভুলবশত আমাদের বিকাশ একাউন্ট সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে গেলে তৎক্ষনাৎ অনেক সমস্যায় পড়ে যেতে হবে।

এই পোস্টে আমি আলোচনা করব বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হওয়ার কারণ কি এবং কিভাবে সাময়িক বন্ধ হয়ে যাওয়া একাউন্ট পুনরুদ্ধার করবেন বিস্তারিত।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হওয়ার কারণ

বেশিরভাগক্ষেত্রে বিকাশ একাউন্ট সাধারণত সাময়িকভাবে বন্ধ বা স্থগিত হয়ে থাকে। বিকাশ একাউন্ট সাময়িকভাবে বন্ধ হওয়ার কারণগুলো হলো,

  • পর পর ৩ বার ভুল পিন ব্যবহার করলে বিকাশ পিন লক হয়ে যাবে। দেখুন বিকাশ পিন লক হলে করণীয়
  • একই মোবাইল নম্বরে খুব কম সময়ে বার বার রিচার্জ বা সেন্ড মানি করলে। মোবাইল রিচার্জের ক্ষেত্রে বিকাশের সময়সীমা হচ্ছে ১৫ মিনিট। তাই ১৫ মিনিটের মধ্যে একই নম্বরে ২ বার রিচার্জ করলে এটি অস্বাভাবিক লেনদেন বলে গণ্য হবে।
  • অস্বাভাবিক লেনদেন করলে।
  • একই জাতীয় পরিচয় পত্র দ্বারা পূর্বে কোন বিকাশ একাউন্ট করে থাকলে।

উপরোক্ত কারণগুলোতে, বিকাশ একাউন্টের নিরাপত্তার কারণে সাময়িকভাবে বিকাশ একাউন্ট লক করা হতে পারে।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ বা লক হলে করনীয় কি

সাময়িকভাবে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে, বিকাশ কাস্টমার সাপোর্ট নম্বরে বা Live Chat এ যোগাযোগ করে আপনার বিকাশ একাউন্ট সম্পর্কে বিভিন্ন প্রয়োজনীয় তথ্য সঠিকভাবে দিয়ে নিশ্চিত করতে হবে আপনিই বিকাশ একাউন্টের প্রকৃত মালিক। বিকাশ প্রতিনিধি বিকাশ একাউন্টের প্রকৃত মালিকানা নিশ্চিত হওয়ার পর আপনার একাউন্ট চালু করে দিবে।

স্থায়ীভাবে কোন বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে আপনি তা আর সচল করতে পারবেন না। বিকাশ সাধারণত প্রথমবারেই কোন একাউন্ট পারমানেন্টলি বন্ধ (Parmanently Closed) করে না। বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে আপনাকে যা করতে হবে।

  • বিকাশ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করুন
  • বিকাশ কাস্টমার সাপোর্ট বা লাইভ চ্যাটে যোগাযোগ করুন

ধাপ #১ – বিকাশ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করুন

বিকাশ কাস্টমার সাপোর্টে যোগাযোগ করা হলে, তারা আপনার পরিচয় ও বিকাশ একাউন্টের মালিকানা নিশ্চিত হওয়ার জন্য আপনার কাছে কিছু তথ্য জানতে চাইবে। তাছাড়া সরাসরি বিকাশ কাস্টমার সার্ভিস পয়েন্টে গেলেই আপনাকে আপনার আইডি কার্ড নিয়ে যেতে হবে। তাই আগে তথ্যগুলো আপনাকে হাতের কাছে রাখতে হবে। তথ্যগুলো হতে পারে,

  • জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর, পাসপোর্ট বা ড্রাইভিং লাইসেন্স নম্বর যা দিয়ে আপনি বিকাশ একাউন্ট খুলেছেন।
  • আপনার জন্ম তারিখ
  • বিকাশ একাউন্টের নাম বা আপনার নাম
  • শেষ কয়েকটি লেনদেনের মধ্যে যে কোন একটি লেনদেন
  • সর্বশেষ ব্যালেন্স
  • পিতার নাম ও মাতার নাম ইত্যাদি।

ধাপ #২ -বিকাশ হেল্পলাইনে কল করুন বা লাইভ চ্যাটে মেসেজ দিন

প্রয়োজনীয় তথ্য যোগাড় করার পর, নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন,

  1. বিকাশ কাস্টমার সাপোর্ট নম্বর- 16247 এ বিকাশ নম্বর থেকে কল করুন। অথবা বিকাশ লাইভ চ্যাট এ মেসেজ দিন
  2. আপনার বিকাশ একাউন্টের সমস্যার কথা বলুন।
  3. একাউন্ট পুনরায় চালু করার মত হলে, বিকাশ একাউন্ট যে আইডি দিয়ে খুলেছেন তার নম্বর, জন্ম তারিখ, বিকাশ একাউন্টের বর্তমান ব্যালেন্স, সর্বশেষ লেনদেন বা আরে তথ্য জানতে চাইবে।
  4. সবগুলো তথ্য সঠিকভাবে দিন।
  5. আপনিই বিকাশ একাউন্টের প্রকৃত মালিক তা নিশ্চিত হলে, আপনার একাউন্ট পুনরায় চালু করে দিবে।
  6. বিকাশ লাইভ চ্যাটে হলে, আপনার আবেদনটি জমা হবে এবং ১২ ঘন্টার মধ্যেই বিকাশ থেকে আপনাকে সমস্যার ব্যাপারে কল করে সমস্যাটি সমাধান করার চেষ্টা করা হবে।

আশা করি আপনার বিকাশ একাউন্টটি পুনরায় সচল করতে পারবেন।

শেষকথা

বিকাশ একাউন্ট সাময়িক বা স্থায়ীভাবে বন্ধ করার প্রথম কারণ হচ্ছে ভুল তথ্য ব্যবহার করে একাউন্ট করলে এবং সন্দেহজনক লেনদেন করলে। তাছাড়া কারো অভিযোগ বা আইনি প্রক্রিয়ার কারণেও বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করা হতে পারে।

হয়তো আপনার এধরণের কোন সমস্যা নয়। হতে পারে, বার বার পিন ভুল বা অন্য কোন নিরাপত্তাজনিত কারণেই একাউন্ট বন্ধ করা হয়েছে। এটি আপনি বিকাশ কাস্টমার সাপোর্টে ফোন দিয়ে সমাধান করতে পারবেন। পর পর ৩ বার ভুল পিন ব্যবহারের কারণে পিন লক হলে, দেখুন কিভাবে বিকাশ পিন রিসেট করবেন

বিকাশ সংক্রান্ত বিভিন্ন টিপস ও তথ্য জানতে দেখুন বিকাশ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

FAQ

বিকাশ একাউন্টের বর্তমান ব্যালেন্স জানা না থাকলে কি করব?

বিকাশ একাউন্টের বর্তমান ব্যালেন্স জানা না থাকলে, আপনার মোবাইলের বিকাশের সর্বশেষ মেসেজ ব্যালেন্স জেনে নিতে পারেন। এভাবেও সম্ভব না হলে বিকাশ প্রতিনিধিকে আপনার মনে নেই বলুন। বিকাশ প্রতিনিধি আপনার সর্বশেষ যে কোন একটি লেনদেনের পরিমাণ জিজ্ঞেস করতে পারে। এই প্রশ্নের উত্তর বিকাশের সর্বশেষ মেসেজ দেখে জেনে নিতে পারেন।

যে জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে বিকাশ খোলা হয়েছিল তা সঙ্গে না থাকলে কি করব?

আপনাকে মুলত জাতীয় পরিচয় পত্রের নম্বর ও জন্ম তারিখ বলতে হবে। এগুলো জানা থাকলে জাতীয় পরিচয়পত্র সঙ্গে থাকতে হবে না।

বিকাশ হেল্পলাইন ব্যস্ত থাকলে কি করব?

বিকাশ হেল্পলাইন নম্বর ব্যস্ত থাকলে বিকাশ লাইভ চ্যাট এ যোগাযোগ করতে পারেন। আপনার সকল তথ্য দিয়ে বিকাশ একাউন্ট সচল করে দেয়ার অনুরোধ করুন। ১২ ঘন্টার মধ্যে বিকাশ কাস্টমার সাপোর্ট থেকে আপনার সাথে যোগাযোগ করা হবে।

বিকাশ সংক্রান্ত অন্যান্য তথ্য

সকল আপডেট তথ্যের জন্য Facebook Page

Similar Posts

মন্তব্য করুন