অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ২০২২

আপনার জন্ম নিবন্ধনে ভুল রয়েছে? কোন ব্যাপার না। জন্ম নিবন্ধনে কোন ভুল থাকলে অনলাইনেই তা সংশোধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ২০২২ সালের আপডেট সব তথ্য, কিভাবে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করা যায়, কিভাবে আবেদন করবেন বিস্তারিত নিয়ে আজকের আলোচনা। আশা করি আপনার উপকারে আসবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ২০২১

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত টাকা লাগে

বাংলাদেশ সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী, জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন, পুনঃমুদ্রণের জন্য ফি নির্ধারণ করেছে। জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত টাকা লাগে তা বিস্তারিত নিচে দেয়া হল।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফি

সংশোধনের ধরণদেশেবিদেশে
তথ্য সংশোধনের জন্য ফি১০০ টাকা ২ ডলার
জন্ম তারিখ ব্যতীত নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, ঠিকানা ইত্যাদি ও অন্যান্য তথ্য সংশোধনের জন্য৫০ টাকা১ ডলার
বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সনদ বা তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি সরবরাহবিনা ফিসেবিনা ফিসে
বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় সনদের নকল সরবরাহ ৫০ টাকা১ ডলার
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফি ২০২২

জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধনে জন্ম তারিখ সংশোধন বা বয়স সংশোধনের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। উপযুক্ত প্রমাণ সাবমিট করলেই ১৫ কার্যদিবসের মধ্যেই আবেদন অনুমোদন হয়ে যায়।

জন্ম নিবন্ধনে জন্ম তারিখ সংশোধনের জন্য, টিকার কার্ড, জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স বা টিআইএন সার্টিফিকেট প্রমাণপত্র হিসেবে সাবমিট করার প্রয়োজন হয়।

জন্ম নিবন্ধনে ইংরেজি তথ্য সংযোজন

পূর্বের জন্ম নিবন্ধনগুলোতে আমাদের ইংরেজি তথ্য অন্তর্ভুক্ত ছিলনা। পরবর্তীতে অনলাইন ডাটাবেইজ করার পর ইংরেজি তথ্য সংযোজন করার সুযোগ রাখা হয়।

আপনারা যারা এখনো জন্ম নিবন্ধনে ইংরেজি তথ্য সংযোজন করেননি, অনলাইনে আবেদন করে নিজেই ইংরেজি তথ্য যোগ করে নিতে পারেন।

যে কোন ধরণের তথ্যের পরিবর্তন, সংযোজন ও বিয়োজনকে সংশোধন হিসেবে গণ করা হয়, তাই অনলাইনে একটি তথ্য সংশোধনের আবেদন করে এ কাজটি করে নিতে পারেন।

জন্ম নিবন্ধন বাংলা থেকে ইংরেজি করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধনে পিতা/মাতার নাম সংশোধন

আপনার জন্ম নিবন্ধনে পিতা/মাতার নাম সংশোধন করা পরিস্থিতি ভেদে সহজ বা কঠিন হতে পারে আপনার জন্য।
পিতা/মাতার নাম সংশোধনের জন্য ভিন্ন ভিন্ন পরিস্থিতি অনুযায়ী ভিন্ন আবেদন পদ্ধতি রয়েছে। আসুন জানি এগুলো সম্পর্কে।

পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন রয়েছে

১ম ধাপঃ যদি আপনার বাবা/মায়ের অনলাইন বা ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন থাকে, তখন প্রথমে দেখতে হবে তাঁদের জন্ম নিবন্ধন সঠিক আছে কিনা। যদি সঠিক না থাকে, আগে তাঁদের জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে হবে। সঠিক থাকলে, কিছু করতে হবেনা ২ ধাপ অনুসরণ করুন।

২য় ধাপঃ এরপর, আপনার জন্ম নিবন্ধন করার সময় যদি পিতা/মাতার নিবন্ধন নম্বর দিয়ে থাকেন, স্বয়ংক্রীয়ভাবে আপনার জন্ম নিবন্ধনে সংশোধিত নাম দেখাবে। আপনি জন্ম নিবন্ধনটি পুনমুদ্রণ করার আবেদন করে পুনঃমুদ্রণ করিয়ে নিলেই হবে।
আর যদি জন্ম নিবন্ধন করার সময় আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না দিয়ে থাকেন, এক্ষেত্রে আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরের সাথে পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর ম্যাপ করতে হবে। ম্যাপ করার পর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনর্মুদ্রণ করলে, সেখানে পিতা/মাতার সংশোধিত নাম দেখা যাবে।

পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নেই

পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন না থাকলে ২ ধরণের আবেদন হতে পারে। তাঁরা জীবিত থাকলে এক ধরণের আবেদন আবার তাঁরা মারা গেলে ভিন্ন আবেদন।

১। পিতা/মাতা জীবিত হলে

১ম ধাপঃ যদি পিতা/মাতা জীবিত আছেন, তাঁদের  জন্ম নিবন্ধন নম্বর করা না থাকে এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পর হয়, অবশ্যই আগে তাঁদের জন্ম নিবন্ধন করতে হবে।

২য় ধাপঃ এরপর, আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরের সাথে পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর ম্যাপ করতে হবে। ম্যাপ করার পর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনর্মুদ্রণ করলে, সেখানে পিতা/মাতার সংশোধিত নাম দেখা যাবে।

উল্লেখ্য, আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পূর্বে হয়ে থাকলে বাবা/মার জন্ম নিবন্ধন কপি বাধ্যতামূলক নয়। এক্ষেত্রে অনলাইনে সংশোধনের আবেদন করে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সাবমিট করলেই হবে।

। পিতা/মাতা মৃত হলে

যদি পিতা/মাতা মৃত, তাঁদের  জন্ম নিবন্ধন নম্বর করা না থাকে এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পর হয়, তখন সরাসরি আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন করে পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার পিতা/মাতার মৃত্যুর প্রমাণপত্র দাখিল করতে হবে।

তবে, আপাতত এই ধরণের আবেদনসমূহ সরাসরি অনলাইনে করা যাচ্ছে না। তাই এই সমস্যার জন্য সরাসরি নিবন্ধকের কার্যালয়ে যোগাযোগ করতে পারেন।

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার প্রক্রিয়া

জন্ম নিবন্ধন তথ্য ইংরেজিতে করার প্রক্রিয়াটি ধাপে ধাপে দেখানো হলো। এজন্য আমাদের ইংরেজি তথ্য সংযোজন করার অনলাইনে একটি আবেদন করতে হবে।

আবেদন করার জন্য নিচের ধাপসমূহ অনুসরণ করুন।

ধাপ ১ঃ জন্ম নিবন্ধন ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন

প্রথমে https://bdris.gov.bd/ এই ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে। এখানে নিচের মত একটি পেইজ আসবে। মেন্যু থেকে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন মেন্যুতে ক্লিক করুন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ২০২১

ধাপ ২ঃ নিবন্ধন নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন তথ্য বের করুন

বক্সে আপনার ১৭ ডিজিটের নিবন্ধন নম্বর লিখুন ও জন্ম তারিখ সিলেক্ট করুন। তারপর অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করে আপনার নিবন্ধন তথ্য খুঁজে নিন।

যদি আপনার নিবন্ধন নম্বরটি ১৭ ডিজিটের না হয়। আপনি যে ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশনে জন্ম নিবন্ধন করেছেন, সেখানে যোগাযোগ করে সঠিক নম্বরটি জেনে নিন।

অথবা, নিজেও আপনার ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন নম্বর ১৭ ডিজিটে রুপান্তর করতে পারবেন। এজন্য একটি কৌশল ব্যবহার করতে হবে।

অনুসন্ধান বা Search বাটনে ক্লিক করার পর নিচের মত আপনার নিবন্ধন এন্ট্রিটি দেখতে পাবেন।

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার নিয়ম
জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার নিয়ম


এখানে নির্বাচন করুন বাটনে ক্লিক করুন এবং কনফার্ম করুন।

ধাপ ৩ঃ নিবন্ধন কার্যালয়ের ঠিকানা বাছাই

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

এ ধাপে আপনি নিবন্ধন কার্যালয় বাছাই করতে হবে (আপনি যে ইউনিয়ন বা পৌরসভায় জন্ম নিবন্ধন করেছিলেন)। এখানে, আপনার দেশ, বিভাগ, জেলা, সিটি কর্পোরেশন বা উপজেলা সিলেক্ট করে আপনি যে পৌরসভা বা ইউনিয়ন পরিষদে জন্ম নিবন্ধন করেছিলেন তা বাছাই করুন।

ধাপ ৪: জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন ফরম পূরণ

এবার আপনি যে তথ্যসমূহ সংশোধন করতে চান তা ফরমে সংযোজন করে আপনার চাহিত শুদ্ধ তথ্যটি লিখুন। নিচের ছবিতে দেখুন কিভাবে সংশোধন করার জন্য তথ্য যুক্ত করবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

মনে করুন আপনি বাংলা নাম সংশোধন করতে চান, তাহলে বিষয় এর পাশে ড্রপডাউন থেকে নাম বাংলায় সিলেক্ট করুন। এভাবে আপনি যেই যেই তথ্য সংশোধন করতে চান, তা এখানে ক্লিক করে সংযোজন করুন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন ফরম

নিচের ছবিতে দেখুন আমি ৩টি তথ্য এখানে সংশোধনের জন্য আবেদন করছি। আবেদনের কারণ হিসেবে ”ভুলভাবে লিপিবদ্ধ হয়েছে” এটি সিলেক্ট করুন। জন্ম তারিখ সংশোধনের ক্ষেত্রে ক্যালেন্ডার থেকে আপনার জন্মসাল, মাস ও তারিখ সিলেক্ট করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন

এরপর একটু নিচে স্ক্রল করুন। এখানে আপনার জন্মস্থান, স্থায়ী ও বর্তমান ঠিকানার জেলা-উপজেলা সিলেক্ট করুন। তারপর ঠিকানা বর্তমান জন্ম নিবন্ধনে যেভাবে আছে ঠিক সেভাবে লিখুন।

নিচের ছবিতে দেখুন কি কি তথ্য আপনাকে পূরণ করতে হবে।

অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সংশোধন

ধাপ ৪: অনলাইনে আবেদন জমা ও প্রমাণপত্র আপলোড

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফরম পূরণ শেষে যিনি আবেদন করছেন তার যোগাযোগ নম্বর দিতে হবে। যদি আপনি নিজের নিবন্ধন সংশোধন করেন, নিজ সিলেক্ট করুন।

অথবা, আপনার সন্তানের বার্থ সার্টিফিকেট সংশোধন করলে পিতা/মাতা সিলেক্ট করুন। আপন বাবা মা না হয়ে আইনগত অভিভাবক হলে অভিভাবক সিলেক্ট করুন।

তবে নিজ/ পিতা বা মাতা ছাড়া অন্য কেউ যেমন, অভিভাবক, নানা-নানী, দাদা-দাদি আবেদন করলে তাদের জন্ম নিবন্ধন নম্বর ও জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর দিতে হবে। নিচের ছবিতে বিস্তারিত দেখুন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

এরপর সবুজ সংযোজন বাটনে ক্লিক করে, প্রয়োজনীয় প্রমাণপত্রের স্ক্যানড কপি আপলোড করবেন। আপনার মোবাইলে তোলা ছবি ও দিতে পারবেন। তবে অবশ্যই ছবি যে সোজাসুজি হয়। কোন পাশ বড় ছোট, আশে পাশে অন্ধকার যেন না হয়।

তারপর পেমেন্ট অপশনে অবশ্যই, ফি আদায় সিলেক্ট করুন। সবকিছু ঠিক থাকলে সাবমিট বাটনে ক্লিক করে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদনটি জমা দিন।

আবেদন জমার পর, আপনি আবেদনের একটি রেফারেন্স নম্বর পাবেন। আবেদনের কপিটি প্রিন্ট করে সংশ্লিষ্ট নিবন্ধকের অফিসে- ইউনিয়ন পরিষদ/ পৌরসভা/ সিটি কর্পোরেশন অফিসে জমা দিন।

আপনার আবেদনের স্ট্যাটাসও অনলাইনে জানতে পারবেন। এ জন্য পড়ুন – জন্ম নিবন্ধন সংশোধন যাচাই করুন।

জন্ম নিবন্ধন সংক্রান্ত আরো বিভিন্ন তথ্য ও পরামর্শ পেতে পড়ুন- জন্ম নিবন্ধন

জন্ম নিবন্ধন সংক্রান্ত আরো বিভিন্ন টিপস, পরামর্শ ও তথ্য জানতে পড়ুন- জন্ম নিবন্ধন

Similar Posts