টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার নিয়ম (আয়কর আইন ২০২৩)

স্থায়ীভাবে আপনার করযোগ্য আয় না থাকলে টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে পারেন। জানুন কিভাবে টিন সার্টিফিকেট বাতিল করা যায় এবং বাতিল করার অসুবিধা।

Advertisement

আপনার করযোগ্য আয় নেই তারপরও বিশেষ কোন প্রয়োজনে হয়তো টিন রেজিস্ট্রেশন করেছেন। তাই এখন টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে চান। তাহলে জানুন, টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার নিয়ম

আপনি চাইলেই সহজেই টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে পারবেন না। শুধুমাত্র লিখিত আবেদন করে টিআইএন সাসপেন্ড করতে পারবেন। তবে নতুন আয়কর আইন ২০২৩-এ টিন সার্টিফিকেট বাতিলের সুযোগ রাখা হয়েছে। আইনটি পাশ হওয়ার পরই শর্তসাপেক্ষে টিআইএন বাতিলের আবেদন করতে পারবেন।

আপডেট: নতুন ২০২৩-২০২৪ বাজেটে, যে সকল করদাতার রিটার্ন দাখিলের আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে তাদের আয়কর করমুক্ত সীমার মধ্যে থাকলেও নুন্যতম ২০০০ টাকা কর ধার্য করার প্রস্তাব করা হয়। ২০২৩-২০২৪ আয়বর্ষের আয়কর রিটার্ন ২০২৪ সালের জুলাই থেকে এই বাধ্যতামূলক ২০০০ টাকা কর পরিশোধ করতে হবে, চলতি বছরে নয়।

Advertisement

নতুন আয়কর আইন ২০২৩ এর ২৬২ নম্বর ধারায় করদাতার নিবন্ধন বা টিন সার্টিফিকেট বাতিলের বিষয়ে বলা হয়েছে। এই ধারায় নিম্মোক্ত শর্তাবলী মোতাবেক টিন সার্টিফিকেট বাতিলের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার শর্তাবলী
টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার শর্তাবলী: আয়কর আইন ২০২৩ (ধারা ২৬২)

আসুন জেনে নিই, টিন সার্টিফিকেট বাতিলের শর্তগুলো কি কি।

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার শর্তাবলী

আয়কর আইন ২০২৩ এর ২৬২ (১) ধারা মোতাবেক টিন সার্টিফিকেট বাতিলের শর্তগুলো হচ্ছে:

Advertisement
  • ধারা ২৬৪ এর অধীন রিটার্ন দাখিলের প্রমাণ উপস্থাপনে আর বাধ্য না হন এবং ধারা ২ এর দফা ২২ এর অধীন করদাতা হিসাবে আর সংজ্ঞায়িত না হন;
  • পরপর বিগত ৩ (তিন) বৎসর করযোগ্য আয় শূন্য হন এবং শারীরিক অক্ষমতার কারণে বা অন্য কোনো কারণে ভবিষ্যতে কোনো করযোগ্য আয় শূন্য থাকিবেন; বা ধারা ১৬৬ এর অধীন আর রিটার্ন দাখিলের প্রয়োজন নাই;
  • মৃত্যু, অবসায়ন, অবলুপ্তি (dissolution) বা অনুরূপ অন্য কোনো কারণে অস্তিত্বহীন হইয়া যান;
  • স্থায়ীভাবে বাংলাদেশ ত্যাগ করেন এবং বাংলাদেশে আয় উপার্জক কোনো কর্মকাণ্ড করিবেন না;
  • ডুপ্লিকেট (duplicate) নিবন্ধন বা ভুল নিবন্ধন পাইয়া থাকেন;
  • আইনি মর্যাদা পরিবর্তন করেন;
  • অন্য কোনো আইনানুগ কারণ প্রদর্শন করেন।

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার নিয়ম

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য প্রয়োজনীয় শর্ত পালিত হলে, প্রথমে আপনার Taxes Circle এর উপ-কর কমিশনার বরাবর উপযুক্ত কারণসহ টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার লিখিতভাবে আবেদন করতে হবে। আবেদনের সাথে পূর্বের দাখিল করা রিটার্নের রিসিট, টিন সার্টিফিকেট ও এনআইডি কার্ডের কপি জমা দিন।

Advertisement

আয়কর কতৃপক্ষ টিন সার্টিফিকেট বাতিলের ক্ষেত্রে নিম্মোক্ত বিষয়গুলো যাচাই করবেন:

  • করদাতা কর্তৃক পরিশোধ্য কোনো বকেয়া কর নেই;
  • করদাতার বিরুদ্ধে কোনো কর নির্ধারণ নিষ্পন্নাধীন নেই;
  • আয়কর সংক্রান্ত কোনো বিরোধ নেই; এবং
  • করদাতা নিবন্ধন বাতিলের যে কারণ উল্লেখ করেছেন তার সঠিক।

উপ-কর কমিশনার আবেদন যথোপযুক্ত মনে করলে এবং আইন অনুসারে অন্যান্য সকল শর্ত পালন হলে টিন সার্টিফিকেট বাতিল অর্থাৎ করদাতার নিবন্ধন নিষ্ক্রিয় করবেন। এক্ষেত্রে টিন সার্টিফিকেট সম্পূর্ণভাবে বাতিল করা হবে না, শুধুমাত্র Inactive বা Dormant করা হবে।

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য ২টি কারণ থাকতে পারে, ১) করদাতা মারা গেলে, ২) করযোগ্য আয় না থাকলে।

Advertisement

এক্ষেত্রে কিভাবে টিন সার্টিফিকেট বন্ধ করার নিয়ম নিচে ব্যাখ্যা করা হলো।

১. করদাতা মারা গেলে TIN Certificate বাতিল করার নিয়ম

টিন সার্টিফিকেট ধারী কোন করদাতা মারা গেলে এবং ভবিষ্যতে উক্ত টিন সার্টিফিকেট কোন প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসায়িক কার্যক্রমে ব্যবহার না করা হলে, টিন রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা যাবে।

আর যদি করদার প্রতিষ্ঠিত কোন ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের জন্য টিন সনদ ব্যবহার করা হয়, সেক্ষেত্রে তার ওয়ারিশ/প্রতিনিধি/ দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি প্রতিবছর আয়কর রিটার্ণ দাখিল ও আয়কর (যদি প্রযোজ্য) পরিশোধ করবেন।

মৃত ব্যক্তির টিআইএন এর কোন প্রয়োজনীয়তা না থাকলে, উত্তরাধিকারীরা উপকর কমিশনার বরাবর টিআইএন বাতিলের জন্য আবেদন করবেন। উপকর কমিশনার Inspection বা Hearing এর মাধ্যমে অথবা আবেদনের উপর ভিত্তি করে আপনার টিআইএন এর কার্যক্রম স্থগিত বা বাতিল করতে পারেন।

Advertisement

করদাতা মারা গেলে, টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য যা যা প্রয়োজন হবে,

  • ওয়ারিশ কর্তৃক লিখিত আবেদন
  • টিন সার্টিফিকেটের কপি
  • পূববর্তী আয়কর রিটার্নের রিসিট/প্রত্যয়ন কপি
  • করদাতার মৃত্যু সনদের কপি
  • করদাতার জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি

২. করযোগ্য আয় না থাকলে টিন বাতিল করার নিয়ম

করযোগ্য আয় না থাকলেও প্রতিবছর আয়কর রিটার্ণ জমা দেয়া অনেকের জন্য একটি ঝামেলাপূর্ণ কাজ। তাই আমরা অনেকেই চাই টিন সার্টিফিকেট বন্ধ করতে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এটি বন্ধ করার প্রয়োজন নেই।

করযোগ্য আয় না থাকলে টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য অবশ্যই আপনাকে পরপর ধারাবাহিকভাবে ৩ বছর শুন্য রিটার্ন দাখিল করতে হবে। তারপর আপনি আপনার TIN Certificate এ উল্লেখিত Taxes Circle এর উপ-কর কমিশনার বরাবর লিখিত আবেদন করতে হবে।

করযোগ্য আয় না থাকলে, টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য প্রয়োজন হবে,

  • লিখিত আবেদন
  • টিন সার্টিফিকেটের কপি
  • পূববর্তী আয়কর রিটার্নের রিসিট/প্রত্যয়ন কপি
  • করদাতার জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার দরখাস্ত

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য দরখাস্ত করতে হবে আপনার কর সার্কেলের উপ-কর কমিশনার বরাবর। TIN বাতিলের উপযুক্ত কারণ ব্যাখ্যা করে এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যেমন টিন সার্টিফিকেট ও এনআইডি কার্ডের কপি সংযুক্ত করে দরখাস্ত জমা দিতে হবে।

টিন সার্টিফিকেট বাতিল

শেষকথা

ব্যক্তি মারা গেলে টিন বাতিল করা যৌক্তিক বিষয়। কিন্তু করযোগ্য আয় না থাকলে টিন বন্ধ বা বাতিল করার কোন প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি না। আপনার পরপর ৩ বছর করযোগ্য আয় না থাকলে আপনাকে পরবর্তী বছর থেকে রিটার্ণ জমা দিতে হবে না।

তারপরও আপনি আবেদন করতে পারেন। যদি আপনার আবেদনের উপযুক্ত কারণ থাকে এবং সন্তোষজনক হয়, আপনার টিন সার্টিফিকেট বন্ধ হবে।

আশাকরি আপনি যা জানতে চেয়েছেন তার উত্তর পেয়েছেন। যদি না পান নিচের সাধারণ প্রশ্ন-উত্তর গুলো চেক করে দেখতে পারেন। এরপর ও আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে লিখুন।

আয়কর এবং আয়কর রিটার্ণ সম্পর্কে আরো তথ্য একসাথে পেতে দেখুন- আয়কর ও আয়কর রিটার্ন

সাধারণ প্রশ্ন ও উত্তর

আয়কর আইন ২০২৩ অনুসারে টিন সার্টিফিকেট থাকলেই আয়কর রিটার্ন ও নুন্যতম কর ২০০০ টাকা জমা দিতে হবে না। তবে যাদের বাধ্যতামূলক রিটার্ন জমা দিতে হবে, তারা জমা না দিলে জরিমানা ও শাস্তির আওতায় আনা হবে।

আপনার কোন আয় না থাকলে আয়কর রিটার্ন জমা দিতে হবে না। তবে ভবিষ্যতে করযোগ্য কোন আয় হওয়ার সম্ভাবনা না থাকলে টিন সার্টিফিকেট বাতিলের জন্য, টিন সনদে উল্লেখিত ট্যাক্স সার্কেলের উপ-কর কমিশনারের নিকট আবেদন করুন।

অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট বাতিল করা যায় না। টিন সার্টিফিকেট বাতিলের জন্য বাতিলের র্শত পালিত হলে আপনাকে কর সার্কেলের উপ-কর কমিশনার বরাবর লিখিত আবেদন করতে হবে।

টিন সার্টিফিকেট সংক্রান্ত আরো তথ্য

Advertisement

Similar Posts

5 Comments

  1. আমি একজন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারী। আমি নিয়মিত পেনশন ভাতা ও চিকিৎসা ভাতা পাই। আমার জিপিএফ, আঠারো মাসের মূল বেতনের টাকা ও গ্র‍্যাচুয়িটির টাকা দিয়ে সঞ্চয় পত্র ক্রয় করা হয়েছে। সঞ্চয় পত্রের মুনাফা হতে সরকারি নিয়ম মোতাবেক কর কর্তন করে অবশিষ্ট মুনাফার টাকা আমাকে দেয়া হয়। যা সরকারি ভাবে হিসেবে থাকার কথা।
    প্রতি বছর অর্থ বছরের শুরুতে সঞ্চয় পত্রের মুনাফার উপর কর কর্তনের প্রত্যয়ন পত্র দেয়া হয়।
    এখন আমার প্রশ্ন হল, পেনশন আর সঞ্চয় পত্রের মুনাফা ছাড়া আমার আরকোন আয় নেই, এবং যেহেতু সঞ্চয় পত্রের মুনাফার কর সরকারি ভাবেই কেটে রাখা হয় এবং প্রত্যয়ন পত্র দেয়া হয়, সেহেতু (১)নতুন আইনানুসারে (২০২৩) আমি টি আই এন সার্টিফিকেট বাতিল করার আবেদন করতে পারি কি-না?
    (২) যেহেতু আমাকে প্রতি বছর সঞ্চয় পত্রের আয়কর কর্তনের প্রত্যয়ন পত্র দেয়া হয়, সেহেতু সম্ভাব্য সকল ক্ষেত্রে প্রত্যয়ন পত্রের কপি দাখিল করলে চলে কি-না?
    দয়া করে উত্তর জানালে উপকৃত হবো।

    1. না, সঞ্চয়পত্র থেকে যে কর কাটা হয় তা আপনার টিআইএন এর সাথে যুক্ত। টিআইএন বাতিল করা যাবে না বরং, আপনাকে রিটার্ন দাখিল করতে হবে। আপনি ইতোমধ্যে যে কর দিচ্ছেন তা রিটার্নে অগ্রিম কর হিসেবে উল্লেক করে রিটার্ন সাবমিট করতে হবে। সঞ্চয়পত্রের আয়কর কর্তনের প্রত্যয়ন রিটার্নের সাথে জমা দিতে হবে। তবে অনলাইনে রিটার্ন দিলে লাগবে না। দেখুন সঞ্চয়পত্রের আয়কর রিটার্ন

    2. আমি ২০২৩ এর অক্টোবর মাসে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করেছি।আমি একজন ছাএ আমার কোনো মাসিক আয় নেই।এখন আমি এটা কি বাতিল করতে পারবো?? বা কতদিন পট বাতিল করতে পারবো??

      1. বাতিল করলে ভবিষ্যতে প্রয়োজন হলে কি করবেন? কিছু করতে হবে না। চুপ করে বসে থাকেন আয় না থাকলে। রিটার্ন দিতে হবে না, রিটার্ন দিতেই ২০০০ টাকা নুন্যতম কর দিতে হবে। যখন আয় হবে বা রিটার্ন দিতে হবে তখন দিবেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।