অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কত দিন লাগে

জানুন জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনের বিভিন্ন ক্যাটাগরি এবং ধরন অনুযায়ী ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কত দিন লাগে বিস্তারিত তথ্য।

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কত দিন লাগে

আমরা অনেকেই জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের জন্য অনলাইনে আবেদন করার পর অনেক দিন পার হয়ে গেলেও কোন উত্তর পাইনা। ফলে অনেকের জরুরী কাজ যেমন পাসপোর্ট করা, চাকরীর আবেদন এগুলো করতে পারছেন না।

কেন এই সমস্যা এবং ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কত দিন লাগে তার সঠিক তথ্য নিয়ে লিখব। আশা করি আপনাদের উপকারে লাগবে।

প্রথমে জানি নির্বাচন কমিশনের মতে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কতদিন লাগে।

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কতদিন লাগে

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে সর্বোচ্চ ৭ থেকে ৪৫ কার্য দিবস লাগতে পারে। যা নির্ভর করে সংশোধনের ক্যাটাগরির উপর। ”ক” ক্যাটাগরির আবেদন ৭ দিন, ”খ” ক্যাটাগরির আবেদন ১৫ দিন, “গ” ক্যাটাগরির আবেদন ৩০ দিন এবং “ঘ” ক্যাটাগরির আবেদন ৪৫ দিনের মধ্যে নিষ্পন্ন করা হয়।

এখানে দিন বলতে কার্য দিবস বোঝানো হয়েছে। যদিও নির্বাচন কমিশন থেকে বিভিন্ন ধরণের সংশোধনের জন্য একটি নির্দিষ্ট সময়সীমা দেয়া হয়েছে, এক্ষেত্রে ২/৩ দিন এদিক সেদিক হওয়া স্বাভাবিক ব্যাপার।

সংশোধন ক্যাটাগরিদ্বায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকার্যদিবস
উপজেলা নির্বাচন অফিসার৭ দিন
জেলা নির্বাচন অফিসার১৫ দিন
আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসার৩০ দিন
NID Wing এর মহাপরিচালক৪৫ দিন

যখন কেউ অনলাইনে অথবা উপজেলা নির্বাচন অফিসে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনের আবেদন করেন, প্রথমে সেই আবেদনটি ক্যাটাগরি হওয়ার জন্য ঢাকার নির্বাচন কমিশনের NID Wing এর হেড অফিসে একজন দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসারের কাছে স্বয়ংক্রীয়ভাবে চলে যায়।

উক্ত অফিসার প্রতিটি সংশোধন আবেদনের ধরন অনুযায়ী প্রতিটি আবেদনের ক্যাটাগরি করেন এবং প্রতিটি সংশোধন আবেদন নিষ্পত্তির জন্য সংশ্লিষ্ট উপজেলা বা অঞ্চলেরর অফিসারের কাছে স্বয়ংক্রীয়ভাবে চলে যায়। তখন ওই দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার আবেদনটি যাচাই-বাছাই করে অনুমোদন বা বাতিল করেন।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ক্যাটাগরি

সংশোধনের ধরণসংশোধনের ক্যাটাগরি
নামের বানান সংশোধন
নামের আংশিক পরিবর্তন
বাংলা ও ইংরেজি নাম মিলকরণ
জন্ম তারিখ সংশোধন (৩ বছর পর্যন্ত)
লিঙ্গ পরিবর্তন
বৈবাহিক অবস্থা সংশোধন
ঠিকানা সংশোধন
রক্তের গ্রুপ সংশোধন
মোবাইল নম্বর পরিবর্তন
স্বামী বা স্ত্রীর নাম সংযোজন/বিয়োজন
জন্ম তারিখ সংশোধন (৫ বছর পর্যন্ত)
শিক্ষাগত যোগ্যতা পরিবর্তন
ছবি, স্বাক্ষর, আঙ্গুলের ছাপ, আইরিশ আপডেট
অসমর্থতা/প্রতিবন্ধীতা
ধর্ম পরিবর্তন
সম্পূর্ণ নাম পরিবর্তন-
পাবলিক পরীক্ষার সনদের ভিত্তিতে
জন্ম তারিখ সংশোধন (৫ বছরের বেশি)-
(চাকরীর বয়স সীমা, মুক্তিযোদ্ধা, ভোটার যোগ্যতা, নির্বাচনে প্রার্থীর সীমা, বয়স্কভাতা অর্জনের বসয় সীমা ব্যতীত)
সম্পূর্ণ নাম পরিবর্তন-
পাবলিক পরীক্ষার সনদ ছাড়া অন্যান্য প্রমাণের ভিত্তিতে
জন্ম তারিখ সংশোধন-
(চাকরীর বয়স সীমা, মুক্তিযোদ্ধা, ভোটার যোগ্যতা, নির্বাচনে প্রার্থীর সীমা, বয়স্কভাতা অর্জনের বসয় সীমা সহ সকল ক্ষেত্রে)

কিভাবে ভোটার আইডি কার্ড দ্রুত সংশোধন করা যাবে

ভোটার আইডি কার্ড দ্রুত সময়ের মধ্যে সংশোধন করার জন্য অবশ্যই আপনার আবেদনের সাথে সংশোধিত তথ্যের গ্রহণযোগ্য প্রমাণপত্র আপলোড করতে হবে। ছোটখাট ও আংশিক সংশোধন আবেদনগুলো উপযুক্ত প্রমাণ সাপেক্ষে ৭/১৫ দিনের মধ্যেই অনুমোদন করা হয়।

FAQs

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে কত দিন লাগে?

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে ৭ দিন থেকে ৪৫ দিন লাগতে পারে। যা নির্ভর করে সংশোধনের ক্যাটাগরির উপর। ”ক” ক্যাটাগরির আবেদন ৭ কার্যদিবস, ”খ” ক্যাটাগরি ১৫ কার্যদিবস, “গ” ক্যাটাগরি ৩০ কার্যদিবস এবং “ঘ” ক্যাটাগরি ৪৫ কার্যদিবসে মধ্যে নিষ্পন্ন করা হয়।

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধনের ক্যাটগরি কয়টি?

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধনের ক্যাটগরি ৪ টি, এগুলো হলো ক, খ, গ, ঘ ক্যাটাগরি।

শেষ কথা

উপরের ছকে নিশ্চয় খেয়াল করেছেন যে কোন ধরণের সংশোধন কোন ক্যাটাগরিতে রয়েছে। ক্যাটাগরি অনুযায়ী সংশোধনের সময় নির্ভর করে।

দ্রুত সময়ের মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করাতে, অবশ্যই সঠিকভাবে আবেদন করুন এবং গ্রহণযোগ্য ও উপযুক্ত প্রমাণ আপলোড করুন।

সরকারি বিভিন্ন অনলাইন সেবা, ব্যাংকিং সেবা, ভ্যাট ও কর সংক্রান্ত তথ্যের জন্য যে কোন সময় ভিজিট করুন – eservicesbd.com এবং ফেসবুক পেইজ ফলো করুন- Eservicesbd.

লেখা ভাল লাগলে অবশ্যই নিচে 5 Star Rating দিয়ে উৎসাহ দিবেন। এরকম আরো তথ্য নিয়ে শেয়ার করব আপনাদের সাথে।

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন সংক্রান্ত আরও তথ্য

সংশোধন করার নিয়মভোটার আইডি কার্ড সংশোধন
ফি পরিশোধভোটার আইডি কার্ড সংশোধন ফি
ক্যাটাগরিজাতীয় পরিচয় পত্র
হোমপেইজে যানHome

সকল আপডেট তথ্যের জন্য Facebook Page

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।