বাংলায় ও ইংরেজিতে নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম

জানুন চিঠিপত্রে বা ডকুমেন্টে শুদ্ধভাবে বাংলায় ও ইংরেজিতে নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম।

বর্তমানে চিঠিপত্রের আদান প্রদান কম হওয়াতে আমাদের অনেকেই জানি না কিভাবে চিঠিপত্রে শুদ্ধভাবে নিজের ঠিকানা লিখতে হয়। তাই যারা জানেন না তাদের জন্য এখানে দেখাবো, শুদ্ধভাবে বাংলায় ও ইংরেজিতে নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম।

সঠিকভাবে ঠিকানা লেখার গুরুত্ব অনেক অনেক বেশি। আপনার দেয়া ঠিকানা ভুল হলে হারিয়ে যেতে পারে আপনার গুরুত্বপূর্ণ চিঠি বা ডকুমেন্ট। তাছাড়া, ভুল ঠিকানার কারণে আপনার কাছে পাঠানো কোন ডকুমেন্ট বা পার্সেল পৌছাতে অনেক সময় লেগে যেতে পারে।

নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম বাংলা

ইংরেজিতে নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম

সাধারণত ঠিকানা ছোট থেকে বড় এভাবে লিখতে হয়। যেমনঃ প্রথমে থাকবে আপনার বাসার নম্বর, এর পর থাকবে রোড নম্বর বা এলাকার নাম। তারপর থাকবে সেক্টর বা ওয়ার্ড নাম্বার। তারপর ধারাবাহিকভাবে পোস্ট অফিস, ইউনিয়ন, থানা, উপজেলা ও জেলার নাম।

তবে সবক্ষেত্রে বিস্তারিত ঠিকানা লিখার প্রয়োজন হয় না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই, বাসার নম্বর, এলাকা বা রোডের নাম, পোস্ট অফিস, উপজেলা ও জেলার নাম লিখলেই হয়।

নিচে ইংরেজিতে একটি শহরের ঠিকানা লেখার ফরমেট দেখানো হল।

Flat#6(B), House#07, Road#11, Sector-3, Uttara, Dhaka-1230

যেহেতু গ্রামে কোনো সেক্টর নাই সেহেতু গ্রামের ঠিকানা লেখার ফরমেট হতে পারে এমন,

House/Holding#04, Ward No. 04, Village- Baraichari, Post Office: Kaptai (4530), Kaptai, Rangamati.

Permanent Address এবং Present Address

কোথাও স্থায়ী ঠিকানা এবং বর্তমান ঠিকানা সম্পূর্ণভাবে লিখতে হলে এভাবে লিখতে পারেন,

House# X, Road# X, Sector/ Ward No: X, Post Office: X, Thana: X, Upazila: X, District: Y

এছাড়া আপনি যদি কারো কেয়ারে থাকেন, যেমন আপনার বাবা/মা বা কোন আত্মীয় বা অভিবাবকের নাম ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনার নামের পর, (প্রযন্তে বা care of: সেই ব্যক্তির নাম) এভাবে লিখুন।

নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম বাংলা

আপনি প্রথমে আপনার বাড়ি নাম্বার দেবেন। এরপর, ধারাবাহিকভাবে রাস্তা নম্বর/নাম, গ্রাম, পোস্ট অফিস (কোডসহ), থানা, উপজেলা ও সবশেষে জেলা লিখবেন। পোস্ট অফিস লেখার ক্ষেত্রে অবশ্যই পোস্ট অফিসের নামের পর (-) hypen বা ব্র্যাকেট দিয়ে পোস্ট কোড লিখবেন। যেমন, পোস্ট অফিস: কাপ্তাই-৪৫৩০ অথবা পোস্ট অফিস: কাপ্তাই (৪৫৩০)

বাংলায় শহর এলাকার ঠিকানা লেখার একটি ফরম্যাট নিচে দেয়া হল,

বাসা নং- ৬/বি, হাউজ নং- ০৭, সেক্টর-৩, উত্তরা, ঢাকা-১২৩

বাংলায় গ্রাম এলাকার ঠিকানা লেখার একটি ফরম্যাট হতে পারে,

বাড়ির নাম/হোল্ডিং নং- ৪৩২, গ্রাম- বড়ইছড়ি, পোস্ট অফিস- কাপ্তাই-৪৫৩০, থানা- কাপ্তাই, উপজেলা- কাপ্তাই, জেলা- রাঙ্গামাটি।

ডাকটিকিটে বা চিঠির খামে ঠিকানা লেখার নিয়ম

চিঠির খামের দুইটি অংশ থাকে। একটি প্রেরক এবং অপরটি প্রাপক। যিনি চিঠি লিখবেন বা যে ঠিকানা থেকে চিঠি পাঠানো হবে সেটি প্রেরক অংশে লিখতে হবে। এবং যার কাছে চিঠি পাঠানো হবে না যে ঠিকানায় চিঠি পাঠানো হবে সেটি প্রাপক অংশে লিখতে হবে।

চিঠির খামে ঠিকানা লেখার ক্ষেত্রে যিনি চিঠি পাঠাবেন (প্ররকের ঠিকানা) তার ঠিকানা বামে এবং যার কাছে চিঠি পাঠানো হচ্ছে (প্রাপকের ঠিকানা) ডানে লিখতে হবে। নিচের ছবিতে দেখুন।

চিঠির খামে ঠিকানা লেখার নিয়ম

ইংরেজিতে খামের উপর ঠিকানা লেখার নিয়ম

ইংরেজিতে খামের উপর ঠিকানা লেখার জন্য ডান পাশে যার কাছে চিঠি পাঠাবেন (প্রাপক) তার নাম লিখবেন। এবং বামপাশে যিনি পাঠাচ্ছেন (প্রেরক) তার নাম লিখবেন। এক্ষেত্রে যার কাছে পাঠাচ্ছেন তার নামের পূর্বে (To) এবং যিনি পাঠাচ্ছেন তার নামের আগে (From) লিখবেন। নিচের ছবিতে দেখুন

ইংরেজিতে খামের উপর ঠিকানা লেখার নিয়ম

শেষকথা

আশা করি যারা এই বিষয়টি জানার জন্য খুজছেন তাদের কাজে লাগবে। ঠিকানা লেখার ক্ষেত্রে আমাদের সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত, বিশেষ করে নাম, বাড়ির নাম, রোড নম্বর, ও পোস্ট কোড যতটা সম্ভব পরিস্কার ও স্পষ্ঠভাবে উল্লেখ করতে হবে। তা না হলে, আপনার পার্সেল বা ডকুমেন্ট পৌছাবেনা এমনকি হারিয়েও যেতে পারে।

এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের টিপস ও পরামশ নিয়মিত ফেইসবুকে পেতে আমাদের পেইজ ফলো করুন- Eservicesbd

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।